বিশ্বের চার ভদ্র ক্রিকেট প্লেয়ার যারা কখনো কারো সাথে মাঠে ঝগড়া করেনি

ক্রিকেটকে ভদ্রলোকের খেলা বলা হয়। কিন্তু ম্যাচ চলাকালীন এমন সব পরিস্থিতির সৃষ্টি হয় যে মাঠে মেজাজ হারাই অনেক বড় বড় ক্রিকেটার। এই প্রতিবেদনটি হল এমন চার ক্রিকেটপ্লেয়ার কে নিয়ে যারা মাঠের পরিস্থিতি যাই হোক না কেন, কোনদিন নিজেদের ধৈর্য হারিয়ে কারো সাথে কোন ঝামেলা করেনি।

1: কেন উইলিয়ামসন- নিউজিল্যান্ডের ক্যাপ্টেন কেন উইলিয়ামসন ক্রিকেট মাঠে যে কোনো পরিস্থিতিতে নিজের ধৈর্য ধরে রাখতে পরিচিত। সেটা ম্যাচে জয় হোক বা হার। উল্লেখিত 2019 সালে বিশ্বকাপে ইংল্যান্ড এর কাছে নাটকীয় হারের পর ও কেন উইলিয়ামসনের মুখে হাসি ছিল।কেন উইলিয়ামসন তার ক্রিকেট ক্যারিয়ারে এখনো পর্যন্ত ৮৮ টেস্ট ম্যাচ, ১৫৫ ওয়ানডে ও ৭৭ টি টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন।

2: শচীন টেন্ডুলকর- ক্রিকেট ঈশ্বর নামে পরিচিত শচীন টেন্ডুলকর। শচীনকে মাঠে খুব কম সময় মেজাজ হারাতে দেখা গিয়েছে। তিনি অনেকবার মাঠে দুর্বল আম্পায়ারিং এর শিকার হয়েছেন, কিন্তু তিনি তা হাসিমুখে মেনে নিয়েছেন। তিনি মাঠে সুন্দর ব্যাট করে বিশ্বকে মনমুগ্ধ করেছেন। তার নামে আন্তর্জাতিক একশোটি সেঞ্চুরি আছে। তিনি তার ক্রিকেট ক্যারিয়ারে ২০০ টি টেস্ট ম্যাচ, ৪৬৩ টি ওয়ানডে ও একটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন।

3: কুমার সাঙ্গাকারা- শ্রীলংকার সর্বকালের সেরা কিংবদন্তি প্লেয়ারদের মধ্যে একজন হল কুমার সাঙ্গাকারা। অসাধারণ উইকেটরক্ষক, ব্যাটসম্যান ও অধিনায়ক হিসেবে তিনি ছিলেন অনন্য খেলোয়াড়। ক্রিকেট যে ভদ্র লোকের খেলা তিনি সেটা মাঠে বারবার দেখিয়েছেন। ২০১১ সালে বিশ্বকাপ ফাইনালে ভারতের কাছে হেরে যায় তার দল উইকেটের পিছনে তবু তার মুখে হাসি ছিল। তিনি শ্রীলংকার হয়ে ১৩৪ টি টেস্ট ম্যাচ, ৪০৪ টি ওয়ানডে ও ৫৬ টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন।

4: এবি ডিভিলিয়ার্স- দক্ষিণ আফ্রিকার ৩৬০ ডিগ্রী এই প্লেয়ারের ভদ্রতার জন্য অগুণিত ভক্ত আছে সারা বিশ্বজুড়ে। তিনি বিশেষ করে ভারতীয় ক্রিকেট ভক্তদের কাছে প্রচুর ভালোবাসা পান। তাকে কখনো মাঠে বাজে আচরণ করতে দেখা যায়নি বিপক্ষ বা নিজের কোন টিম মেম্বারের সাথে। তার নামে আন্তর্জাতিক দ্রুততম সেঞ্চুরি ও দ্রুততম হাফ সেঞ্চুরি রেকর্ড আছে। তিনি দক্ষিণ আফ্রিকার হয়ে ১১৪ টি টেস্ট ম্যাচ, ২২৮ টি ওয়ানডে ম্যাচ ও ৭৮ টি টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেছেন।