Mukesh Ambani: আম্বানি দম্পতির প্রিয় রিসর্ট! এক রাতের ভাড়া জানলে রাতের ঘুম উড়ে যাবে আপনার !!

একথা আমরা সকলেই জানি, যে এশিয়ার মধ্যে বিখ্যাত শিল্পপতিদের মধ্যে অন্যতম হলেন মুকেশ আম্বানি (Mukesh Ambani)। যিনি প্রতি বছর কোটি কোটি টাকা আয় করে থাকেন। এবং বর্তমানে তাঁর সম্পত্তির পরিমাণ, আমাদের মতো সাধারণ মানুষের কাছে ধরাছোঁয়ার বাইরে। মুকেশ আম্বানির এমন অনেক সম্পত্তি রয়েছে, যেগুলি তিনি কঠোর পরিশ্রম এবং নিষ্ঠার মাধ্যমে অর্জন করেছেন। সেই জন্যই বর্তমানে তিনি এবং তাঁর পরিবার একসাথে রাজকীয় জীবনযাপন করছেন। এমনকি আম্বানি পরিবার ছুটি কাটাতে যেই রিসোর্টে যান তার এক রাতের ভাড়া জানলেও আপনি রীতিমতো অবাক হয়ে যাবেন।

মুকেশ আম্বানি (Mukesh Ambani) ভারতের মধ্যে নামকরা শিল্পপতিদের মধ্যে একজন। তাই তার ঘুরতে যাওয়া জায়গা গুলোও সেই রকমই হবে। মুকেশ আম্বানি এবং তাঁর স্ত্রী নীতা আম্বানি দুজনেই সুইজারল্যান্ডে অবস্থিত সুইস্ আল্পস্-এ ছুটি কাটাতে যেতে পছন্দ করেন। যেটি এক অতি বিলাস বহুল রিসর্ট। আর এখানে এসে মুকেশ আম্বানি স্বপরিবার মিলে ছুটি কাটান। এই সুন্দর রিসোর্টের নাম হল বুর্গেনস্টক রেসর। এটি সেই জায়গা যেখানে ভারতের সবচেয়ে ধনী পরিবার ছুটি উদযাপন করতে আসে। এবং আম্বানি পরিবার এখানে আসার আগেই তারা এখানে রয়্যাল এবং প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুট বুক করে নেন আগে থাকতেই।

Mukesh Ambani
Mukesh Ambani House

জানা গেছে, ১৮৭৩ সালে নির্মিত এই রিসোর্টটি বছরের পর বছর ধরে হলিউড সেলিব্রিটি এবং বিলিয়নিয়ার ব্যবসায়ীদের জন্য একটি হটস্পট হয়ে উঠেছে। এর রয়্যাল এবং প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুটের মোট ভাড়া প্রায় ৬১ লক্ষ টাকা। এছাড়াও এই বিলাসবহুল রিসোর্টের একটি সাধারণ রুমের ভাড়াই প্রতিদিন প্রায় ৩২ লাখ টাকা। এর মধ্যে রয়েছে আরও অনেক কিছু ও সুযোগ-সুবিধা। আপনি জানলে অবাক হবেন, এই বিলাসবহুল রিসোর্টটিতে ১০টি বার, বেশ কয়েকটি রেস্তোঁরা এবং ইন-হাউস জাকুজির মতো ফিচারও রয়েছে। এই রিসোর্টটি লুসার্ন হ্রদের তীরে একটি পাহাড়ের উপর অবস্থিত।

Mukesh Ambani Resort
Mukesh Ambani Resort

তবে আমাদের মত সাধারণ মানুষের পক্ষে এই রিসোর্টে থাকা সম্ভব নয়। কারন এর একদিনের ভাড়াও আমাদের সারাজীবনের সঞ্চয়ের থেকে অনেক বেশি। সূত্রের খবর, করোনাকালে মুকেশ আম্বানি (Mukesh Ambani) তাঁর স্ত্রী নীতা আম্বানি সহ সপরিবার নিয়ে এই রিসোর্টে থাকতে এসেছিলেন। সেই সময় আম্বানি পরিবার রয়্যাল ও প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুট বুক করেছিল। এখানকার দিনপ্রতি নাকি ভাড়া ছিল ৬১ লক্ষ টাকা। বলা হয়, আম্বানি পরিবার তখন করোনা থেকে নিজেদের বাঁচাতে কোটি কোটি টাকা খরচ করে এখানে থাকতে এসেছিলেন।