ভারতকে হারানোর নায়ক মিরাজকে প্রশংসার সাগরে ভাঁসালেন সুনীল গাভাস্কার !!

মিরাজের প্রশংসা করতে লোকেশ রাহুল মোটেও কার্পণ্য করেননি। রাহুল আরও বলেছেন, ভারত ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে ঘুরে দাঁড়াবে পরের ম্যাচে। মিরপুরে রবিবার রাতে দেখা গেছে এক অন্য বাংলাদেশকে। যে দলটি চাপের মধ্যে বারবার খেই হারিয়েছে, গত রাতে সেই দলটি নাটকীয় জয় ছিনিয়ে নিয়েছে। টাইগারদের জয়ের নাম হল মেহদী হাসান মিরাজ।
তাই লোকেশ রাহুল মোটেও কার্পণ্য করেননি মিরাজের প্রশংসা করতে। রাহুল আরও বলেছে, ভারত পরের ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াবে ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে। মেহদী হাসান মিরাজ শুরুটা করেছিলেন শিখর ধাওয়ানকে বোল্ড করে। তারপর রোহিত শর্মা ও বিরাট কোহলিকে এক ওভারে স্বীকার করে সাকিব আল হাসান সব আলো করে নেন।

একে একে পাঁচটি উইকেট শিকার করে ফেলেন। তারপরেই এবাদত হোসেনের পেস তোপ শুরু হয়। চারটি উইকেট শিকার করে নেন তিনি। ভারত ১৮৬ রানে গুটিয়ে যায়। রাহুল নিজেদের ব্যাটিং নিয়ে বললেন, “আরো ৩০-৪০ রান আমাদের বেশি হলে ভালো হতো। আমি আশায় ছিলাম আমি শেষ পর্যন্ত যদি ২৩০-২৪০ ব্যাট পড়তে পারতাম। আমার সঙ্গে সিরাজ ভালো ব্যাটিং করছিল। তাই আরো যদি ১০ ওভার ব্যাট আমি করতে পারতাম তাহলে ৩০-৪০ রান আরো বেশি হতো। সেটা একটা বড় ব্যবধান করে দিতে পারতো।” মিরাজ আবারও ব্যাটিংয়ে আলো কেড়ে নেন। বাংলাদেশকে ম্যাচ জিতিয়েছেন ৩৯ বলে ৩৮ রানের মহামূল্যবান ইনিংসে। ভারতকে চাপে ফেলে মিরাজ ম্যাচ করে নিয়েছেন তা রাহুল অকপটে স্বীকার করেছেন।

তিনি বললেন, “তাদের জয়ের জন্য শেষের দিকে কেবল একটাই পথ ছিল এবং আমি মনে করি বিস্ময়কর ইনিংস খেলেছে মেহদী হাসান (মিরাজ)। বেশ কয়েকটি সুযোগ নেওয়ার সে চেষ্টা করেছে, কিছু ঝুঁকিও নিয়েছে তাকে সেটা নিতেই হত। তাকে শেষের দিকে গিয়ে বড় শট খেলতে হতো একটা বড় ঝুঁকি নিয়ে। এবং সে বাউন্ডারি পেয়ে গেছে সেগুলোতে। আপনার যখন আর ৩০-৩৫ রান দরকার হয়, তখন প্রতিপক্ষকে দুই-একটা বড় শটই চাপে ফেলে দেয় এবং খুব ভালোভাবেই সে সেটা করেছে।” রাহুল নিজেদের ভুল নিয়ে বললেন, “এবং হ্যাঁ, দুইটি ক্যাচ আমরা ছেড়েছি, যা আর আমাদের সাহায্য করেনি। এইরকম হয়ে থাকে ক্রিকেটে এবং হ্যাঁ, শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশ দারুন লড়াই করেছে এবং ভুল থেকে শিক্ষা নিয়ে ফিরে আসবো শক্তিশালী হয়ে।