প্রতি দলে ১২ জন করে ক্রিকেটার খেলবেন আইপিএলে !!

আইপিএল 2023 থেকে প্রতিটি দলে 11 জনের পরিবর্তে 12 জন ক্রিকেটার পারফর্ম করবেন। অতিরিক্ত একজন খেলোয়াড় ‘ইম্প্যাক্ট’ ক্রিকেটার হিসেবে থাকবেন। 2023 সালের মার্চ মাসে আইপিএলের নতুন আসর শুরু হবে। আসন্ন আইপিএলে ভারতের ক্রিকেট বোর্ড বিসিসিআই নতুন নিয়ম আনতে যাচ্ছে।

তাতে 11 জনের পরিবর্তে 12 জন ক্রিকেটারকে প্রতিটি দলে পারফর্ম করতে মাঠে দেখা যাবে। যে অতিরিক্ত ক্রিকেটারের রাখার কথা নতুন নিয়মে বলা হচ্ছে দলে তিনি ‘ইম্প্যাক্ট’ খেলোয়াড় হিসেবে ভূমিকা রাখবেন শুক্রবার বিসিসিআই বিষয়টি নিশ্চিত করে এক বিজ্ঞপ্তিতে। অনেকটা ফুটবল ম্যাচের মতো ওই ক্রিকেটার বদলি হিসাবে নামবে।

কয়েক বছর ধরে ভারতের ক্রিকেটে কথা হচ্ছিল “ইম্প্যাক্ট প্লেয়ার” নিয়ম চালুর ব্যাপারে। যেটা কর্তৃপক্ষ সফলভাবে পরীক্ষা করেছে সদ্য সমাপ্ত ভারতের ঘরোয়া টুর্নামেন্ট সৈয়দ মুশতাক আলী টি-টোয়েন্টি ট্রফিতে। এখন বিসিসিআই মনে করছে আইপিএল 2023 এই নিয়ম আলোর মুখ দেখবে বলে। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছেন।

এই নিয়ম অনুযায়ী আইপিএলের নতুন মরশুমে ম্যাচের মাঝখানে প্রতিটি দল একজন বিকল্প খেলোয়াড়কে নামাতে পারবে, যা ‘এক নতুন মাত্রা’ এই জনপ্রিয় টুর্নামেন্টে যোগ করবে। বিসিসিআই শুক্রবার জানায়,“নতুন মাত্রা যোগ করার জন্য আইপিএল 2023 মরশুম থেকে কৌশলগত নতুন এক ধারণা চালু করা হবে। সেখানে আইপিএল ম্যাচে একজন বিকল্প খেলোয়াড় প্রতিটি দলে আরো সক্রিয় ভূমিকা নিতে সক্ষম হবে।” আরো জানিয়েছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড, নিয়মটি প্রথমে সফলভাবে প্রয়োগ করা হয়েছিল ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে। এবং তা থেকে দলগুলো কৌশলগত সুবিধা লাভ করেছিল।

দলগুলো এই ক্ষেত্রে প্লেইং ইলেভেনের তালিকা ছাড়াও চারজন বিকল্প ক্রিকেটারের নাম দেবে প্রথম ডেলিভারির আগে। এর মধ্যে বিকল্প হিসাবে 14 তম ওভার শেষ হওয়ার আগে একজন ক্রিকেটারকে আনা যাবে। ওই “বদলি ক্রিকেটার” অন্য ক্রিকেটারের মতোই পুরোপুরি ব্যাটিং ও বোলিং করতে পারবে।


আইপিএল “ইমপ্যাক্ট প্লেয়ার” নিয়মের বৈশিষ্ট্য:-

ইম্প্যাক্ট খেলোয়াড়ের ভূমিকার সাথে কোন সম্পর্ক থাকবে না তিনি যে খেলোয়াড়ের বদলি নামবেন তার সঙ্গে। ওডিআই তে 2005 এবং 2006 সালে ব্যবহৃত কানকশন বিকল্প বা সুপার ধারণার বিপরীতে। এক্ষেত্রে তিনি যে খেলোয়াড়ের বদলি হিসেবে একজন ইম্প্যাক্ট খেলোয়াড়কে নামাচ্ছেন, ওই ক্রিকেটারের মতোই তাকে যে নির্দিষ্ট বিভাগের পারফর্মার হতে হবে এমনটা নয়। যেমন-অন্য একজন ব্যাটার দিয়ে একজন বোলারকে বদলি করা যাবে বা বিপরীতও হতে পারে।

বল বা ওভারের সংখ্যার ইম্প্যাক্ট খেলোয়াড়ের ক্ষেত্রে কোন সীমাবদ্ধতা নেই। উদাহরণস্বরূপ, এমন কোন বোলারের বদলি হিসাবে ইম্প্যাক্ট প্লেয়ার নেমেছেন ইতিমধ্যে যে কিনা তার সম্পূর্ণ বোলিং কোটা পূরণ করেছেন। তারপরেও চার ওভার বল করার সুযোগ পাবেন ওই ইম্প্যাক্ট ক্রিকেটার হিসেবে নামা খেলোয়াড়। তখন যদি মাত্র 5 জন বোলার থাকেন যারা বোলিং করবেন পুরো কোটা।

তাই হবে ব্যাটিংয়ের ক্ষেত্রেও। যদি ইতিমধ্যে আউট হয়ে যাওয়া ব্যাটারির জায়গায় একজন ইমপেক্ট ক্রিকেটার খেলতে আসেন এবং অন্য সাধারণ ব্যাটারের মতো ওই ইম্প্যাক্ট ক্রিকেটার ব্যাট করতে পারবেন (নির্দিষ্ট কোন ওভার পর্যন্ত নয়), তবে এক্ষেত্রে ব্যাটিংয়ে নামার সুযোগ পাবেন 11 জন ব্যাটার বা যেকোনো দল সুযোগ পাবে 10 উইকেট পর্যন্ত ব্যাটিং করার।

একজন ইম্প্যাক্ট ক্রিকেটারকে কোন ওভারের মাঝখানে নামানো যাবে না, যদি না কোন উইকেটের পতনের সময় সে ব্যাট করতে না আসে বা একজন ইনজুরিতে পড়া ফিল্ডারের বদলি নামে। দ্বিতীয়ত, ওই বদলি ইনজুরড খেলোয়াড় আর ম্যাচে অংশ নিতে পারবেন না, এমনকি কোন বিকল্প বা বদলি হিসাবেও নয়।

ম্যাচটি খারাপ আবহাওয়ার কারণে সংক্ষিপ্ত হলে, নিয়মটা জটিল হবে কিছুটা। প্রতিটি দলের জন্য ম্যাচটি 10 ওভারের নিচে কমিয়ে আনা হলে নামানো যাবে না একজন ইম্প্যাক্ট ক্রিকেটারকে। যদিও বা 10 ওভারের বেশি হয়, তবে ম্যাচের নিয়ম অনুযায়ী ইম্প্যাক্ট ক্রিকেটার আসতে পারে।