শর্তসাপেক্ষে আইপিএল খেলার ছাড়পত্র পেলেন সাকিব আল হাসান ও লিটন দাস !!

আর মাত্র কয়েকটা দিন বাকি আছে হাতে, এরপরই এবারের আইপিএল শুরু হতে চলেছে। কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে শাকিব আল হাসান ও লিটন দাসের খেলা নিয়ে সেই প্রতিযোগিতা শুরু হওয়ার আগেই জল্পনা শুরু হয়েছিল। সম্প্রতি আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের সিরিজ রয়েছে। এনওসি পাওয়া নিয়ে সেই কারণেই একটা ধোঁয়াশা দেখা দিয়েছে। অবশেষে কলকাতা নাইট রাইডার্স শিবির খানিকটা স্বস্তিতে। শর্তসাপেক্ষ হলেও আইপিএলে খেলার জন্য শেষ পর্যন্ত শাকিব আল হাসান ও লিটন দাস ছাড়পত্র পেলেন। যদিও তাদের খেলার সম্ভাবনা ছিল না প্রথম থেকে।

এবারের আইপিএল শুরু হতে চলেছে আগামী 31 শে মার্চ থেকে। সেখানে প্রথম ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংস গুজরাত টাইটান্সের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে। এবারের আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্স ১ এপ্রিলেই যাত্রা শুরু করবে। যদিও তারা প্রথম ম্যাচে ঘরের মাঠে নামবে না। মোহালিতে প্রথম ম্যাচে কলকাতা নাইট বাহিনী পাঞ্জাব কিংসের বিরুদ্ধে মাঠে নামবে। কিন্তু সেই ম্যাচে নামার আগে কলকাতা নাইট রাইডার্স শিবিরে গোটা দল পাওয়া নিয়ে খানিটা ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে।

কলকাতা নাইট রাইডার্সের অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়ির এবারের আইপিএল শুরু হওয়ার আগেই দল থেকে ছিটকে গিয়েছেন। এবারে মেনে নিলাম এর আগে কলকাতা নাইট রাইডার্স ফার্গুসনকে দলে নিয়েছিল। কিন্তু চোট পাওয়ার কারণে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলার ব্যাপারে তাকে নিয়েও জল্পনা দেখা গিয়েছিল। এবার কে কলকাতা নাইট রাইডার্সকে নেতৃত্ব দেবেন তা নিয়ে জল্পনা চলছে। অনেকে সেখানে শাকিব আল হাসানের নাম নিয়ে জল্পনা করছিল। কিন্তু তারাও খেলতে পারবে না প্রথম থেকে।

প্রথমে শাকিব আল হাসান ও লিটন দাসকে আইপিএল খেলার জন্য বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড ছাড়পত্র দিতে নারাজ ছিল। আয়ারল্যান্ড টেস্টের মধ্যেই এই দুই তারকা ক্রিকেটার আইপিএল থেকে ছুটি চেয়েছিলেন। কিন্তু সেই সময় বিসিবি কর্তারা তাদের ছুটি মঞ্জুর করতে চাইনি। কিন্তু শেষ মুহূর্তে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড তাদের ছাড়পত্র দিয়েছে। যদিও অনেক শর্তসাপেক্ষ মেনে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড তাদের শেষ পর্যন্ত ছাড়পত্র দিয়েছে। তবে আয়ারল্যান্ড সিরিজ খেলেই তারা আইপিএলের মঞ্চে যোগ দিতে পারবেন।

আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টির পর বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজ রয়েছে। আয়ারল্যান্ডের বিরুদ্ধে এবারের বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজ চলবে ৪ থেকে ৮ এপ্রিল পর্যন্ত। সেই সিরিজ খেলার পর এই দুই তারকা ক্রিকেটার আগামী ৯ই এপ্রিল ভারতে আসতে পারেন। তবে শেষের দিকে এই তারকা ক্রিকেটারদের বাংলাদেশের হয়ে সিরিজ খেলার জন্য ফিরে যেতে হবে। শেষ পর্যন্ত সেখানে কী হয় সেটাই এবার দেখার।