বিরাট কি সচিনের একশো সেঞ্চুরির রেকর্ড কি ভাঙতে পারবেন? চমকে দেওয়া জবাব দিলেন শাস্ত্রী !!

১৯৮৯ সালের ১৫ নভেম্বর থেকে ২০১৩ সালের ১৪ নভেম্বর, দীর্ঘ ২৪ বছর ধরে তিনি ক্রিকেট দুনিয়াকে শাসন করেছেন। আধুনিক ক্রিকেটে আর একজন বিপক্ষ বোলারদের সংহারক। এক ও অদ্বিতীয় সচিন তেন্ডুলকর (Sachin Tendulkar) হলেন প্রথমজন। আর একজন হলেন বিরাট কোহলি (Virat Kohli)। ১০০ টি শত রানের মালিক ‘গড অফ ক্রিকেট’ হলেও, মাত্র ৩৪ বছর বয়সে ফিটনেসের শীর্ষে থাকা বিরাট ৭৫টি শতরান সেরে ফেলেছেন। সম্প্রতি প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে যে, আদেও কি আগামী কয়েক বছরের মধ্যে ‘কিং কোহলি’ (King Kohli) ‘মাস্টার ব্লাস্টারকে’ (Mastar Blastar) টপকে যাবেন? রবি শাস্ত্রীকেও (Rabi Shastri) এই একই প্রশ্ন করা হয়েছিল। টিম ইন্ডিয়ার (Team India) আর প্রাক্তন কোচ সবাইকে চমকে দেওয়ার মতো জবাব দিলেন।

শাস্ত্রী বললেন, “১০০ টি সেঞ্চুরি করেছে ক’জন প্লেয়ার? মাত্র একজন। ফলে সেই মাইলস্টোন যদি বিরাট অতিক্রম করতে পারে তাহলেও সেটা বড় ব্যাপার হবে। ওর মধ্যে আরো ক্রিকেট রয়েছে। এখনো বিরাট কোহলি দারুন ফিট। যখন বিরাটের মতো খেলোয়াড় সেঞ্চুরি করতে শুরু করে, একটার পর একটা সেঞ্চুরি তখন আসতেই থাকে। ১৫ টি ম্যাচের মধ্যে বিরাট কোহলি ৭ টি সেঞ্চুরি করেছে। এখনো ৫-৬ বছর বিরাট কোহলি ক্রিকেট খেলতে পারবে। তবে ১০০ টি সেঞ্চুরির মালিক শুধু একজন, এও কল্পনার অতীত। সে কারণে বলছি, ওর কাছাকাছি যদি বিরাট পৌঁছাতেও পারে, তাহলেও সেটা বড় ব্যাপার হবে।”

সচিন ও বিরাটের মধ্যে একটি অনুষ্ঠানে তুলনা করা হলে, আবারও রবি শাস্ত্রী বলেন, “এই ক্রিকেট দুনিয়ার শীর্ষে যদি কোন ব্যাটার থাকে, তাহলে সেটা হল সচিন তেন্ডুলকর। আমার বক্তব্য কিন্তু এটা নয়। এটা মেনে নিয়েছে সবাই। আমরা যদি ক্রিকেটের ব্যাকরণ মেনে কপিবুক শটের কথা বলি, তাহলে সচিনের নাম সবার আগে আসবে। মানলাম আধুনিক ক্রিকেটের লেজেন্ড হলেন বিরাট কোহলি, তবে সবার থেকে এগিয়ে সচিন।”

কেন বিরাটের থেকে সচিনকে এগিয়ে রাখছেন? সেটাও শাস্ত্রী বুঝিয়ে দিলেন। তিনি আবারও বললেন, “ওয়াসিম আক্রম, ওয়াকার ইউনিস, কার্টলে অ্যাম্বরোস, কোর্টনি ওয়ালস, গ্লেন ম্যাকগ্রা, শোয়েব আখতার, ব্রেট লি, শেন ওয়ার্ন, মুথাইয়া মুরলীথরনের বিরুদ্ধে বিরাট কি খেলেছে? ওরা ম্যাচ উইনার শুধু নয়, একজন ব্যাটারকে কীভাবে ফাঁদে ফেলতে হয়, ওরা সেটা খুব ভালোভাবে জানত।”

আবার তার প্রতিক্রিয়া, “জেমস অ্যান্ডারসন ও ডেইল স্টেইনের নাম আছে এই তালিকায়। এদের বিরুদ্ধে সচিন ও বিরাট দুজনেই খেলেছেন।তবে প্যাট কামিন্স, ট্রেন্ট বোল্ট, শাহিন শাহ আফ্রিদি, ন্যাথান লিও, আদিল রাশিদ, কাগিসো রাবাদারা দুর্দান্ত বোলার হলেও, আমাদের প্রজন্মের বোলারদের মতো সেই রকম স্কিল নেই। আর তাই সচিনের ধারে কাছেও বিরাট কোনোদিন আসবেনা।” ভারতের প্রাক্তন অলরাউন্ডার এমনটাই মনে করেছেন।