৩৪ মিটার দূর থেকে ডাইরেক্ট হিট! লিটনকে রান আউট করে রাহুল বদলে দিলেন ম্যাচের রঙ

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ৩৫ তম ম্যাচে অ্যাডিলেডের অ্যাডিলেড ওভার স্টেডিয়ামে ভারত ও বাংলাদেশ মুখোমুখি হয়েছে। টিম ইন্ডিয়া বাংলাদেশের সামনে ১৮৫ রানের টার্গেট দিয়েছিল প্রথমে ব্যাট করে। বাংলাদেশ ঝড়ো সূচনা করেছিল ভারতের বিরুদ্ধে। বাংলাদেশের পক্ষে লিটন দাস জোরালো ব্যাটিং করে নিজের অর্ধশত রান পূর্ণ করেন মাত্র ২১ বলে।

একটা সময় বাংলাদেশের লিটন দাস রোহিত শর্মা-বিরাট কোহলিদের কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলে দিয়েছিলেন। একটা সময় বাংলাদেশ ৬৮ রান তুলেছিল ৭.১ ওভারে। যার মধ্যে ২৭ বলে ৬০ রান একা লিটন দাস করেছিলেন। অন্যদিকে দুই অঙ্কের রানও শান্ত করতে পারেননি।

খেলা অনেকক্ষণ বন্ধ ছিল বৃষ্টির কারণে। এরপর ম্যাচ শুরু হলে বাংলাদেশের লক্ষ্য ছিল ১৬ ওভারে ১৫১ রানের। লিটন দাস ক্রিজে ছিলেন। কিন্তু খেলা শুরুর পর নাজমুল হোসেন শান্ত দ্বিতীয় বলে ডিপ-এ খেলেন। তারা পরপর দুই রান করবে ব্যাটসম্যানরা ভেবেছিল কিন্তু সেখানে জোরালো থ্রো মারেন ফিল্ডিং করা কেল রাহুল। নন-স্টাইকার এন্ডে তার বল সরাসরি উইকেটে আঘাত করে। প্যাভিলিয়নের ফিরতে হয় লিটন দাস ক্রিজের বাইরে থাকায়।

Ton, , ৩৪ মিটার দূর থেকে ডাইরেক্ট হিট! লিটনকে রান আউট করে রাহুল বদলে দিলেন ম্যাচের রঙ

লিটন দাস কে এল রাহুলের থ্রোতে আউট হয়ে যেতে পারে কিন্তু তার কাজ ব্যাট হাতে সেরে ফেলেছে। এই ম্যাচে সৌম্য সরকার বাংলাদেশের একাদশ থেকে বাদ পড়েছে। যার কারণে ব্যাটিং ওপেন করার সুযোগ পান তিন নম্বরে খেলা লিটন দাস। তিনি ৬০ রান করেন ২৭ বলে সাতটি চার ও তিনটি ছক্কা মেরে।

যখন ফর্মে ছিলেন লিটন দাস তখন ভারতের হয়ে কে এল রাহুল বৃষ্টি বিঘ্নিত ম্যাচে জ্বলে উঠলেন। রবিচন্দ্রন অশ্বিন ৭ ওভারে বল করতে এসেছিলেন। লিটন দাস রান আউট হন ওভারের দ্বিতীয় বলে। এই সময়ে ডিপ মিড- উইকেটে শান্তর দ্বারা একটি ফ্লিক করা হয়েছিল, দ্বিতীয় রানটি শান্ত নিতে চেয়েছিলেন এবং স্লো ছিলেন দাস। সেই সময় ডিপ মিড উইকেট থেকে কে এল রাহুল সরাসরি হিট করেন, লিটনের একটি পূর্ণ ডাইভও, সেই সময় যথেষ্ট ছিল না।

L5, , ৩৪ মিটার দূর থেকে ডাইরেক্ট হিট! লিটনকে রান আউট করে রাহুল বদলে দিলেন ম্যাচের রঙ

কে এল রাহুলের ফিল্ডিংয়ে শেষ পর্যন্ত লিটনকে সাজঘরে ফিরিয়ে ভারত ম্যাচে ফিরে আসে। লিটন কেমন ব্যাটিং করেছিলেন, সেটা বোঝা যাবে স্কোর দেখেই, যখন ৫৪ রান বাংলাদেশের স্কোর ছিল তখন লিটনের স্কোর ৫১ রান ছিল। এদিনের ম্যাচের কথা বলতে গেলে, টিম ইন্ডিয়া প্রথমে ব্যাট করতে নেমেছিল টস হেরে। ভারত ১৮৪ রান তুলেছিল ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে।

টিম ইন্ডিয়ার হয়ে বিরাট কোহলির ব্যাট থেকে সর্বোচ্চ রান এসেছে। ৪৪ বলে ৬৪ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। একই সময়ে ফর্মে ফিরে আসেন কে এল রাহুল এবং ৫০ রান করেন ৩২ বলে। বিরাট কোহলি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন। কোহলি আবারো অ্যাডিলেডের মাঠে নামার পরে বিস্ময় প্রকাশ করলেন এবং তার তৃতীয় ফিফটি করলেন এই বিশ্বকাপে। টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের এটি তার ৩৬ তম ফিফটি। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে বিরাট কোহলি সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হয়েছেন।