কেন সঞ্জুকে খেলানো হচ্ছে না? ‘বৃহত্তর স্বার্থ’ মনে করালেন ভারতীয় অধিনায়ক !!

সঞ্জু স্যামসনকে কেন খেলানো হচ্ছে না? শিখর ধাওয়ান সরাসরি তা খোলসা করে বললেন না। তবে ভারতীয় দলের অস্থায়ী অধিনায়ক স্মরণ করিয়ে দিলেন দলের বৃহত্তর স্বার্থের কথা। তাঁর আশ্বাস, ‘আমরা তো যেটাই করব, সেটা দলের স্বার্থে করব।‘ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে প্রথম একদিনের ম্যাচের আগে সঞ্জুকে নিয়ে সাংবাদিক বৈঠকে ধাওয়ান প্রশ্নের মুখে পড়েন। তাকেও দীর্ঘদিন অপেক্ষা করতে হয়েছিল প্রথম একাদশে ঢোকার জন্য, এক সাংবাদিক প্রশ্ন করেন সঞ্জুর ক্ষেত্রেও কি একই পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে।

ধাওয়ান সেই প্রশ্নের জবাবে বললেন, ‘অধিকাংশ খেলোয়াড়ের জীবনেই এরকম সময় আসে। এটা দলের জন্য একদিক থেকে ভালো।’ ভারতীয় দলের অস্থায়ী অধিনায়ক ধাওয়ান আরো বললেন, “(এখন ভারতীয়) দলে এত ভালো-ভালো খেলোয়াড় আছে। কথাবার্তা বলার বিষয়টা গুরুত্বপূর্ণ – সেটা কোচ হোক বা অধিনায়ক। তাহলে ওই খেলোয়াড়ের কাছে স্পষ্ট ধারণা থাকে যে কেন খেলানো হচ্ছে না। না খেলানোর পিছনে অসংখ্য কারণ থাকতে পারে। ওই খেলোয়াড়কে সেই কারণটা বলে দেওয়া হয়। যখন (খেলোয়াড় ও অধিনায়ক বা কোচের মধ্যে) যখন পুরো বিষয়টা স্বচ্ছ থাকে, (তাহলে কোনও অসুবিধা হয় না)।”

ধাওয়ান সেই সাথে জানান, খেলানো হচ্ছে না কী কারণে, সেটা ব্যাখ্যা করা হলেও নিঃসন্দেহের হতাশাবোধ তৈরি হয়েছে সংশ্লিষ্ট খেলোয়াড়ের মধ্যে। তবে সেই সব বাদ দিয়ে অগ্রাধিকার দিতে হবে দলের স্বার্থের বিষয়টি। ধাওয়ান বললেন, “কোনও খেলোয়াড় যদি উদাস হয়ে পড়ে, সেটা খুব স্বাভাবিক। কিন্তু ও বুঝতে পারে যে বৃহত্তর স্বার্থে সেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আমরা তো যেটাই করব, সেটা দলের স্বার্থে করব। কোন ক্ষেত্রে দল সবথেকে বেশি লাভবান হবে, সেটা ভেবে সিদ্ধান্ত নিই আমরা।

এমনিতে সঞ্জুকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে না রাখার জন্য শুরু হয়েছিল তুমুল বিতর্ক। সেইরকম ভাবে দীনেশ কার্তিক এবং ঋষভ পন্থরা প্রভাব বিস্তার করতে না পারায় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড একাধিক প্রশ্নে জর্জরিত হয়। কিন্তু তারপরেও টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম একাদশে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে সঞ্জু খেলার সুযোগ পাননি। অথচ একাধিক তারকা দলে ছিলেন না। সেই পরিস্থিতিতে অনেক বিশেষজ্ঞ ভারতীয় দলের সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। আগামী বছরের বিশ্বকাপের দিকে তাকিয়ে তাকে একদিনের সিরিজে খেলানোর দাবি তোলা হয়েছে।