৪০-এ পা মিথালী রাজ-এর, ‘ক্রিকেটের রাণী’কে শুভেচ্ছায় ভাসালেন শচীন, রায়না, গম্ভীর সহ ক্রিকেট মহারথী’রা !!

আজ ৩ ডিসেম্বর ভারতীয় মহিলা ক্রিকেটের অন্যতম শ্রেষ্ঠ তারকা মিথালী রাজ (Mithali Raj) চল্লিশে পড়লেন। ভারতবর্ষ কেবল নয়, সারা বিশ্বে কিংবদন্তির স্তরে মহিলা ক্রিকেটের আঙিনায় রাখা হয় যোধপুরের মিথালীকে। তিনি ২০০০০ এর বেশি রান করেছেন প্রথম মহিলা হিসাবে। ভারতকে দুটি বিশ্বকাপের ফাইনালে নিয়ে গিয়েছেন। মিথালী নামের এক মশাল দেশের প্রতিটি কোনায় প্রতিটি কিশোরী বা বালিকার ক্রিকেট স্বপ্নকে বাঁচিয়ে রেখেছে। তার আসন দেশের ক্রিকেটে তাই বেশ উঁচুতে। আর তাই ক্রিকেট সোশ্যাল মিডিয়া ক্রিকেট কিংবদন্তির জন্মদিন পালনের কোন কমতি রাখতে রাজি নয়। মিথালী দোরাই রাজকে ক্রীড়া বিশ্বের রথী-মহারথী থেকে সাধারণ সমর্থক সকলেই শুভেচ্ছা বার্তায় ভাসিয়েছেন।

নিজের ২৩ বছরের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের নিষ্ঠার সাথে ভারতীয় দলকে মিথালী সেবা করে এসেছেন। একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে মাত্র ১৬ বছর বয়সে তার অভিষেক হয়। প্রথম ম্যাচে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন ১১৪ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলে যে তার রাজ শুধু পদবী নয়। বরং তিনি রাজ করতেই এসেছেন ক্রিকেট দুনিয়ায়। তিনি দীর্ঘ ক্যারিয়ারে ৭৮০৫ রান করেছেন ২৩২টি একদিনের ম্যাচ খেলে।৫০.৭ ব্যাটিং গড় ছিল তার। ৭টি শতরান এবং ৬৪ টি অর্ধশতক রয়েছে। মেয়েদের ক্রিকেটে তার সর্বাধিক রান একদিনের ক্রিকেটেও। তিনি মাত্র ১২টি টেস্ট খেলেছেন, আর ৬৯৯ রান করেছেন ১৯ টি ইনিংসে।

তার নাম টেস্টে দ্বিশতক অবধি আছে। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে মিথালী ২৩৬৪ রান করেছেন ৮৪ ইনিংস মিলে। দলকে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে মিথালী ২০১৭ সালে বিশ্বকাপের ফাইনালে তুলে নিয়ে গিয়েছিলেন। শেষ অবধি ভারতের মেয়েরা অল্পের জন্য ট্রফি জিততে না পারলেও পরবর্তী প্রজন্মকে মিথালী ও বাকিদের লড়াই অনুপ্রেরণা যোগায়। তার আগেও ২০০৫ সালে ভারতের মেয়েরা একদিনের বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলে মিথালীর নেতৃত্বে। তাদের সেই যাত্রাতেও রানার্স-আপ হয়ে থাকতে হয় অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে।

বেশ কিছুদিন হল আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়েছেন। আজ তার জন্মদিনের শুভেচ্ছা বার্তায় উপচে পড়ছে। মিথালীকে মহিলাদের ক্রিকেটের শচীন টেন্ডুলকার বলা হয়। আজ সমাজমাধ্যমে বিশেষ পোস্ট করে শচীন টেন্ডুলকার অবধি মিথালিকে সম্মান জানিয়েছেন। এছাড়াও ট্যুইটার ভরিয়েছেন তার প্রশংসায় গৌতম গম্ভীর, সুরেশ রায়নার মতো তারকারাও।