আইপিএল থেকে বাদ পড়েই ব্যাট হাতে জ্বলে উঠলেন মায়াঙ্ক, করলেন দুর্দান্ত হাফ-সেঞ্চুরি !!

পাঞ্জাব থেকে গত মরশুমে তাদের অধিনায়ক কেএল রাহুলকে লখনৌও সুপার জায়ান্টস ছিনিয়ে নিয়েছিল। আর তারপর থেকে দলের অন্যতম সিনিয়র ক্রিকেটার মায়াঙ্ক আগারওয়ালের হাতে পাঞ্জাব কিংস তাদের অধিনায়কত্বের দায়িত্ব তুলে দেন। অনেক আশা নিয়ে পাঞ্জাব টিম ম্যানেজমেন্টের হাতে দলের নেতৃত্ব তুলে দিয়েছিলেন কিন্তু মায়াঙ্ক পাঞ্জাবে সেই আশা পূরণ করতে ব্যর্থ হন।

মায়াঙ্কের নেতৃত্বে পাঞ্জাব একেবারেই ভালো ফলাফল করতে পারেনি। আইপিএলের মোট ১৪ টি ম্যাচের মধ্যে ৭টিতে জিতে পাঞ্জাব লিগ টেবিলের ৬ নম্বরে শেষ করে। অধিনায়কত্বের পাশাপাশি মায়াঙ্ক ফ্লপ হন ব্যাট হাতে। তিনি ১৯৬ রান সংগ্রহ করেন ১৩ ম্যাচে মাঠে নেমে। আর এই ব্যর্থতার কারণে পাঞ্জাব টিম ম্যানেজমেন্ট এবারে নিলাম এর আগে দল থেকে ছাঁটাই করেছে মায়াঙ্ক আগারওয়ালকে

মায়াঙ্ককে পাঞ্জাব টিম ম্যানেজমেন্ট দল থেকে ছাঁটাই করার দিনই বিজয় হাজারে ট্রফিতে ব্যাট হাতে মায়াঙ্ক দুর্দান্ত ইনিংস খেললেন। এই দিন ঝাড়খণ্ডের বিরুদ্ধে কর্ণাটকের হয়ে মায়াঙ্ক অনবদ্য হাফ সেঞ্চুরি করে ম্যাচ জেতালেন দলকে। ঝাড়খন্ড দল দুর্দান্ত ছন্দে আছে এবারের বিজয় হাজারে ট্রফিতে কিন্তু এই দিন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে ঝাড়খন্ড ল্যাজে গোবরে হল কর্নাটকের মুখোমুখি হয়ে। কর্নাটকে মায়াঙ্ক আগারওয়াল ব্যাট হাতে ম্যাচ জিতিয়ে দিলেন।

এই দিন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের মাঠে কর্ণাটক এবং ঝাড়খন্ড মুখোমুখি হয়েছিল বিজয় হাজারে ট্রফির গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে। ঝাড়খণ্ডের অধিনায়ক বিরাট সিং এই ম্যাচে প্রথমে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন টস জিতে। ঝাড়খন্ড প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে ৪০.৪ ওভারে অলআউট হয়ে যায় ১০৭ রান করে। ঝাড়খণ্ডের হয়ে কুমার কুশাগ্র সর্বোচ্চ ৫৬ রান করেন। মায়াঙ্ক আগারওয়ালের দুর্দান্ত ইনিংসে ভর করে জবাবে ব্যাট করতে নেমে ২৬.৩ ওভারে ১০৮ রান তুলে নেয় ৪ উইকেটের বিনিময়ে কর্ণাটক। কর্ণাটক ৬ রানে ম্যাচ জিতে নেয়।