ক্রিপ্টোর থেকেও দ্রুত গতিতে পড়ছে ভারতীয় ক্রিকেট! রোহিতদের ‘চড়াম চড়াম’ বোমা এবার শেওয়াগের !!

২৪ ঘন্টা কাটল না ভারতের হারের। টিম ইন্ডিয়া পারফরম্যান্স নিয়ে এরই মধ্যে কাটাছেঁড়া শুরু হয়ে গেল। বাংলাদেশের কাছে মিরপুরের শের-ই- বাংলা স্টেডিয়ামে ভারত সিরিজ হারতে সুনীল গাভাস্কার, বীরেন্দ্র শেওয়াগ, ভেঙ্কটেশ প্রসাদরা এবার প্রকাশ্যে সমালোচনা করলেন। রোহিত দ্বিতীয় ওয়ানডেতে একদম নিচের দিকে নামায় গাভাস্কার তুলোধনা করলেন।

সম্প্রচারকারী সোনি স্পোর্টস নেটওয়ার্কের সানি বলে দিয়েছেন, “সকলেই রোহিতের কোয়ালিটি এবং ক্লাস সম্পর্কে জানেন। ঘটনাটি হল, যখন ভারত টার্গেটের এত কাছাকাছি চলে এসেছিল, তাহলে আরেকটু আগে রোহিত কেন নামল না! ৯ নম্বরে ব্যাট করার কথা যদি ও ভেবে থাকে, উচিত ছিল ওর সাত নম্বরে নামা।”

ভারত পাঁচ রানে হার হজম করেছে নখ দাঁত কামড়ানো ম্যাচে। ম্যাচের শুরুর দিকেই রোহিত শর্মা দ্বিতীয় স্লিপে ক্যাচ নিতে গিয়ে চোট পান আঙুলে। এরপর ভাঙ্গা আঙুলেই নয় নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ভারতকে হারা ম্যাচ ২৮ বলে ৫১ রান করে প্রায় জিতিয়ে দিচ্ছিলেন।

দলের হার হজম করতে না পেরে সানি বলেছেন, “আর একটু অন্যভাবে অক্ষর প্যাটেল খেলতে পারতো। অক্ষর হয়তো ম্যাচের ওই মুহূর্তে ভেবেছিল আর হয়তো রোহিত ব্যাট করতে নামবে না। ও তাই ওই রকম শট খেলতে যায়। ম্যাচের ওই পর্যায়ে কোন মানেই হয় না এরকম শট নেওয়ার। ও এত ভালো ব্যাটিং করেছিল। বল দারুন কানেক্ট করেছিল ব্যাটে। ও যদি আরো কয়েক ওভার খেলতো, কে বা বলতে পারে, অন্যরকম হতো না ম্যাচের ফলাফল! ৯ নম্বরে নেমে রোহিত প্রায় ম্যাচ ঘুরিয়ে দিয়েছিল। তাই ৭-এ যদি ও নামতো, আরো সুযোগ থাকতো ভারতের কাছে।”

শেওয়াগ ও প্রসাদরা ভারতের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে ক্ষুব্ধ হয়েছেন। ভারতকে চাঁচাছোলা ভাষায় আক্রমণ করে টুইটারে প্রসাদ লিখেছেন, “ভারত বিশ্বের বিভিন্ন ক্ষেত্রে কত নিত্য নতুন জগৎ উদ্ভাবন করেছে। আর আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি সীমিত ওভার ক্রিকেটে এক দশক পুরনো। ২০১৫ প্রথম রাউন্ডে ছিটকে যাওয়ার পর কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ইংল্যান্ড। তারপর দুনিয়ার অন্যতম উত্তেজক ক্রিকেট টিম ওরা এখন। কঠিন সিদ্ধান্ত নেওয়ার সময় ভারতের এসে গিয়েছে।”

এই নিয়ে ভারত টানা দুটো ওয়ানডে সিরিজ হেরে বসলো। নিউজিল্যান্ডে গিয়ে টিম ইন্ডিয়াকে বাংলাদেশেও বিধ্বস্ত হতে হলো ওয়ানডে সিরিজ হারের পর। এখানেই না থেমে প্রসাদ তাই আরো বলেছেন, “আইপিএল শুরুর পরে আমরা টি-টোয়েন্টি ওয়ার্ল্ড কাপ একবারও জিতিনি। কম গুরুত্বের কিছু দ্বিপাক্ষিক সিরিজ বাদ দিয়ে শোচনীয় ভারতের ওয়ানডে পারফরম্যান্স। নিজেদের ভুল থেকে দীর্ঘদিন ধরে আমরা শিক্ষা নিচ্ছি না। ভারত এখন সীমিত ওভারের ক্রিকেটে উত্তেজনা পূর্ণ ক্রিকেট খেলা থেকে অনেক দূরে। শেওয়াগ নিজের ব্যাটিং স্টাইলের মতই সপাটে বলেছেন, “ক্রিপ্টোর থেকেও আমাদের পারফরম্যান্স দ্রুতগতিতে নীচে নামছে। ঝাঁকুনি দেওয়া দরকার, উঠতে হবে ঘুম থেকে।”