সেমিফাইনালে রোহিতদের দলে বড় বদলের ইঙ্গিত, একাধিক ক্রিকেটারের খেলায় দল অখুশি

বৃহস্পতিবার রোহিত শর্মার ভারত ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সেমিফাইনালে খেলতে নামছে। প্রথম একাদশের রোহিতদের একাধিক পরিবর্তন হতে পারে। সেরকমই ইঙ্গিত। দলকে শেষ চারে যে ক্রিকেটাররা তুললেন, তাদের কেউ কেউ হয়তো ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সুযোগই পাবে না। কারণ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে দল উঠলেও অত্যন্ত সাধারণ ছিল একাধিক ক্রিকেটারের পারফরম্যান্স। যেমন রান করতে পারছেন না অধিনায়ক রোহিত শর্মা। রোহিত শর্মা ৪ রান করেছেন পাকিস্তানের বিরুদ্ধে, দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে ১৫ রান করেছেন, দুই রান করেছেন বাংলাদেশের বিরুদ্ধে এবং জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে ১৫ রান করেছেন।

হার্দিক পাণ্ড্যর ব্যাটেও রান নেই। এখনো পর্যন্ত পাকিস্তানের বিরুদ্ধে ৪০ রান বাদ দিলে তার অবদান মোট ২৫ রান। ভারতের ওপেনিং ভিডিও প্রত্যাশিত পারফরম্যান্স করতে পারছে না। প্রতি ম্যাচের প্রথম পাঁচ ওভারের মধ্যেই রোহিত বা লোকেশ রাহুলের একজন সাজঘরে ফিরছেন। অর্থাৎ, ভারত ঠিক মতো পাওয়ার প্লের সুবিধা কাজে লাগাতে পারছে না। হার্দিক ছাড়া প্রত্যাশা পূরণ করতে ব্যর্থ হয়েছেন আরো এক অলরাউন্ডার অক্ষর প্যাটেল। রান নেই তার ব্যাটে। প্রচুর রান দিচ্ছেন বল হাতে। প্রশ্ন উঠছে স্পিনারদের পারফরম্যান্স নিয়ে।

ভারতীয় দলের কোচ রাহুল দ্রাবিড় দলে পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়েছেন। তিনি খুশি নন দলের একাধিক ক্রিকেটারের পারফরম্যান্সে। দ্রাবিড় জানিয়েছেন অনেক পার্থক্য দেখা যাবে গ্রুপ পর্বের পরিকল্পনার সাথে নক আউট পর্বের পরিকল্পনার। দ্রাবিড় জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে ম্যাচের পর বলেছে,‘‘আমি সব সময় খোলা মনে ভাবি। দলের ১৫ জনই আমার কাছে সমান। সকলেই প্রথম একাদশে আসতে পারে। বিশ্বাস করি, যথেষ্ট যোগ্যতা রয়েছে বলেই এই ১৫ জন বিশ্বকাপের দলে রয়েছে। যে কোনও ১১জনকে নিয়ে দল তৈরি করা যেতে পারে। তাতে আমাদের শক্তির কোনও পার্থক্য হবে না। দলের সকলের পারফরম্যান্সের উপরে নজর রয়েছে আমার। অ্যাডিলেডে খেলা বেশ কিছু ম্যাচের ভিডিয়ো দেখেছি। ওখানকার উইকেট একটু মন্থর। বল একটু থমকে ব্যাটে আসে। উইকেটে স্পিনও আছে। আমাদের অবশ্যই নির্দিষ্ট কিছু পরিকল্পনা থাকবে।’’

সেমিফাইনালের মত কি পরীক্ষা করা ঠিক হবে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে? দ্রাবিড় পরীক্ষার কথা মানতে চাননি। তবে সেমিফাইনালে প্রথম একাদশে পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়ে তিনি বলেছিলেন, ‘‘আমরা হয়তো ১০ নভেম্বর অ্যাডিলেডে অন্যরকম দল নিয়ে খেলব। সত্যি বলতে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ম্যাচটায় আমাদের স্পিন আক্রমণ এক দমই কার্যকর হয়নি। তা ছাড়া এ বার অন্য উইকেটে খেলতে হবে। সেই মতো পরিকল্পনা করতে হবে। বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অ্যাডিলেডের যে উইকেটে খেলেছিলাম, সেমিফাইনাল সেই উইকেটে হবে না। কী হতে পারে তা ভেবে আমি কি হাত গুটিয়ে বসে থাকতে পারি?’’

তবে কি সেমিফাইনালের প্রথম একাদশের যুজবেন্দ্র চাহালকে দেখা যাবে? দ্রাবিড় সরাসরি মন্তব্য করতে চাননি। ভারতীয় দলের কোচ বললেন, ‘‘আমাদের হাতে কয়েকটা দিন রয়েছে। উইকেট দেখে পরিকল্পনা করব। যেটা প্রয়োজন মনে হবে সেটাই করা হবে। উইকেট মন্থর হলে আমাদের পরিকল্পনা সে রকম হবে। যে দল নিয়ে খেললে ওই উইকেটে সবথেকে কার্যকর হবে, তেমন দল নিয়েই খেলব আমরা। দরকারে ম্যাচের দিন সকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করব প্রথম একাদশ বেছে নেওয়ার জন্য।’’