‘অকম্মার ঢেঁকি’, সঞ্জুকে নিয়ে বিস্ফোরক ধাওয়ান !!

জাতীয় দলের হয়ে ঋষভ পন্থ ব্যর্থ হচ্ছেন একের পর এক ম্যাচে। বিশ্বকাপ হোক বা দ্বিপাক্ষিক সিরিজ, নজির জারি পন্থের ব্যর্থতার, দীনেশ কার্তিকের ক্ষেত্রেও একই ছবি। তিনি যে আশা জাগিয়ে কামব্যাক করেছিলেন হয়নি সেটা। তাকে দেখা যায়নি ম্যাচ ফিনিশ করতে। এই পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিনের দাবি উইকেটের পিছনে সঞ্জু স্যামসনকে সুযোগ দেওয়ার। রাজস্থান রয়েলসের অধিনায়ক স্যামসনকে সুযোগ দেওয়া হোক দাবি করেছেন সমর্থক থেকে শুরু করে প্রাক্তন ক্রিকেটার সকলেই। কিন্তু দলে রাখলেও ম্যানেজমেন্টের কর্তারা তাকে সুযোগ দেয়নি। এই ছবি দেখা গেছে সদ্য সমাপ্ত হওয়া টি-টোয়েন্টি সিরিজে। ওডিআই সিরিজের তাকে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে রাখা হবে কি না বড় প্রশ্ন সেটাই। দলে তাকে না রাখার কারণ এবার শিখর ধাওয়ান খোলসা করলেন।

ভারত 2023 সালের ওডিআই বিশ্বকাপের জন্য অভিযান শুরু করেছে। বিরোধী পক্ষ নিউজিল্যান্ড। তবে পূর্ণশক্তির দল এই প্রস্তুতিতে নামাচ্ছে না। দলের দায়িত্ব উঠেছে স্টপ গ্যাপ অধিনায়ক শিখর ধাওয়ানের হাতে। দল তার নেতৃত্বেই নামছে। অন্যদিকের দলে একাধিক তরুণ মুখ রয়েছে। এখানেই তরুণ মুখ সঞ্জুকে সুযোগ দেওয়ার দাবি উঠেছে। কারণ এখনো তিনি পরীক্ষিত নন। যেখানে বাকিরা টানা সুযোগ পাচ্ছে সঞ্জুর ক্ষেত্রে সেটা হচ্ছে না।

ভারতের হয়ে স্যামসন 6টা টি-টোয়েন্টি ও 9টা ওডিআই ম্যাচ খেলেছে। তিনি 179 রান করেছেন টি-টোয়েন্টিতে ও 248 রান করেছেন ওডিআইতে। বাকি প্লেয়ারদের থেকে অনেকটাই ভালো বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন।

সাংবাদিক বৈঠকে প্রথম ওডিআইয়ের আগে ধাওয়ান প্রথম একাদশে স্যামসনকে না নেওয়া নিয়ে মুখ খোলেন। তিনি বললেন,‘এমন সময় সব প্লেয়ারেরই যায় যখন প্রথম একাদশে তাকে নেওয়া হয় না, শেষ সিরিজে সে ভালো খেললেও তাকে নেওয়া হয় না। কথা বলাটা হলো চাবিকাঠি। প্লেয়ারদের সাথে কোচ ও অধিনায়ক কথা বলবে। কেন ওকে দলে নেওয়া হয়নি স্যামসন জানে। কারণ দলের কী লাভ হবে ওকে নিলে, আর দেখা হয় দলের কম্বিনেশনটা।’

প্রথম ওডিআইয়ের আগে দীর্ঘদিন স্যামসন নেটে ব্যাটিং করেন। তাকে টি-টোয়েন্টি সিরিজে সুযোগ না দিলেও তার বদলে দীপক হুডা সুযোগ পান। তবে হার্দিকের অনুপস্থিতে ওডিআইতে সুযোগ পেতে পারেন স্যামসন এমনটাই খবর।স্যামসন ২০২২ সালের ওডিআইতে 5 নম্বরে ব্যাট করতে নেমেছেন 9টা ম্যাচে।